প্রযুক্তির ভাষায় হজ

বর্তমান যুগকে বিনা দ্বিধায় প্রযুক্তির যুগ বলা হয়। বিভিন্ন প্রযুক্তি পণ্য ও মাধ্যম আবিস্কৃত হয়ে গোটা পৃথিবী এখন একটি প্লাটফর্ম। মুহূর্তের মাঝে এক দেশের খবর চলে আসে অন্য দেশে। হাজার হাজর মাইল দুরের মানুষের সাথে কথা বলা যায় অনায়েশে। পৃথিবীর এই তাবৎ আবিস্কার, প্রযুক্তিরগত উন্নয়ন- সবই ইসলাম ও মুসলমনাদের জন্য মহান আল্লাহ প্রদত্ত বিশেষ নেয়ামত। এমন কোনো প্রযুক্তি পণ্য বা প্রযুক্তিগত উন্নয়ন নেই, ইসলামের খেদমেত ব্যবহারযোগ্য নয় সেটা।

লাব্বায়িক, আল্লাহুম্মা লাব্বায়িক! উপস্থিত, হে আমার মনিব আমি উপস্থিত! -এমনই আবেগঘন উচ্চারণে একজন হাজি রবের সমীপে নিবেদন করেন নিজেকে। এ অনাবিল আত্মসমর্পণের প্রতিউত্তরে বান্দার জন্য আল্লাহও তাঁর নৈকট্যের দরোজা অবারিত করে দেন। হজ ইসলামের অন্যতম একটি স্তম্ভ। এই ইবাদাতটি পালনে দৈহিক ও আর্থিক সক্ষমতার শর্ত থাকার কারণে এর বৈশিষ্ট্য ও মর্যাদা ইসলামের অন্যান্য ইবাদাতের চেয়ে ব্যতিক্রম। হজ যেহেতু একটি ঈমানি সফর, একটি নূরানি যাত্রা- তাই এর প্রস্তুতির ধরনও ভিন্ন। শারীরিক প্রস্তুতির সঙ্গে নিতে হয় আত্মিক ও জ্ঞানের প্রস্তুতি। দূরবর্তী দেশের সফর, অচেনা-অপরিচিত স্থান, হজের বিভিন্ন আমল পালন করা এবং দীর্ঘ সময় অবস্থান করা- সব মিলিয়ে প্রত্যেক হাজির ভালো একটি পূর্বপ্রস্তুতি গ্রহণ করা প্রয়োজন। আর হজের জন্য এই প্রস্তুতি গ্রহণ ও পালনকে আরো সহজলভ্য করে দিয়েছে প্রযুক্তি। ইন্টারনেটের মাধ্যমে প্রত্যেক হাজির দুয়ারে পৌছে গেছে হজ বিষয়ক নানা ওয়েসাইট, বিভিন্ন মোবাইল আ্যাপ্লিকেশন। কষ্ট করে এখন আর কোনো বই কিংবা মলাটআবৃত কোনো হজ গাইড টেনে সৌদি আরব নেওয়ার প্রয়োজন নেই। একটি ইন্টারনেট সংযোগের মাধ্যমে বিভিন্ন ভাষার হজ বিষয়ক ওয়েবসাইট ভিজিট করতে পারেন হাজিরা অথবা একটি মুঠোফোনে হজ বিষয়ক বিভিন্ন আ্যাপস ডাউনলোড করে নিয়ে যেতে পারেন খুব সহজেই। যেসব ওয়েবসাইট ও আ্যাপসে খুব পাওয়া যাবে হজ বিষয়ক সব তথ্য, সব নির্দেশনা। বাংলাদেশি হাজিদের জন্য নিন্মে হজের তথ্যসমৃদ্ধ কয়েকটি ওয়েবসাইট ও মোবাইল আ্যাপলিকেশনে পরিচয় তুলে ধরা হলো-

হজ বিষয়ক উল্লেখ্যেযোগ কিছু ওয়েবসাইট

১. হজ.গভ.বিডি  : গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় পরিচালিত হজ ব্যবস্থাপনা পোর্টাল এটি। সংবাদ ও তথ্য, হজ টিপস ও পরিসংখ্যান মেনুর পাশাপাশি এই ওয়েবসাইটে রয়েছে হজযাত্রী অনুসন্ধান, হজযাত্রী সংবাদ, হজ এজেন্সী সংবাদ, হজ এজেন্সী লগইন (HMIS), ফটো গ্যালারী, গুরুত্বপূর্ণ লিঙ্ক, হজযাত্রী ডকুমেন্টারী, ডিসক্লেইমার, ফ্লাইট সময়সূচি বিষয়ক নানান সুবিধামূলক আয়োজন। এছাড়া রয়েছে ঢাকা এবং মক্কার আবহাওয়া ও সময়সূচি জানার অপশন। রিসোর্স হিসেবে আরো রয়েছে হজ ফরম, হজ প্যাকেজ, মিনার মানচিত্র, আরাফাতর মানচিত্র, ম্যাপে এলাকা ভিত্তিক হজযাত্রী, পুরানো সংবাদ ও তথ্য, eHajj Registration (KSA), লাগেজের নিয়মাবলী ও হজ নীতিমালা। ওয়েবসাইটটির ঠিকানা হলো- http://www.hajj.gov.bd/

দুই. হাববিডি.কম  : হজ এজেন্সীজ এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট হাববিডি.কম। হাবের সদস্য এজেন্সীগুলোর তালিকার পাশাপাশি এই ওয়েবসাইটে রয়েছে হজ তথ্য, হজের নিয়মাবলীসহ হজ বিষয়ক সরকারি বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ওয়েবসাইটের লিঙ্ক। এছাড়া রয়েছে হাবের ইতিহাস, হাব পরিচিতি এবং বর্তমান হাব সভাপতি ও সেক্রেটারির বানী। এই ওয়েবসাইটটির ঠিকানা হলো- http://www.haab-bd.com/

তিন. হজনিউজবিডি.কম  : মূলত এটি একটি হজ বিষয়ক একটি নিউজ পোর্টল। দেশ-বিদেশের হজ বিষয়ক সংবাদ পরিবেশন করাই এই পোর্টালটির মূল উদ্দেশ্য। এর পাশাপাশি হজ স¤পর্কিত নানান তথ্য রয়েছে এই ওয়েবসাইটে। হজ গাইড, হজ মেনুয়াল, হজ প্রস্তুতি, ওমরাহ গাইড, ওমরাহ মেনুয়াল, ওমরাহ প্রস্তুতি, মাসলা মাসায়েল, ভ্রমন, ভ্রমন গাইড, টুর প্রতিষ্ঠান ও প্রবন্ধ ইত্যাদি মেনুতে সমৃদ্ধ একটি হজ পোর্টাল http://www.hajjnewsbd.com/

এছাড়া বাংলা ভাষায় পরিচালিত বেশ কিছু ইসলামিক ওয়েবসাইটে হজ বিষয়ক আলাদা আয়োজন-বিভাগ রয়েছে এবং সে বিভাগগুলো বেশ সমৃদ্ধ ও নিয়মিত আপেডট। তন্মধ্যে প্রিয় ইসলাম (http://priyo.com/ islam), কোরআনের আলো ((http://www.quraneralo.com), ইসলাম হাউজ (http://www.islamhouse.com/bn)-এর নাম বিশেষভাবে উল্লেখ্যযোগ্য।

হজ বিষয়ক উল্লেখ্যেযোগ কিছু মোবাইল আ্যাপলিকেশন

ওয়েবসাইটের পাশাপাশি বাংলা ভাষায় হজ বিষয়ক বিভিন্ন মোবাইল আ্যাপসও নির্মিত হয়েছে। ইংরেজি ও আরবি ভাষার হজ বিষয়ক মোবাইল আ্যাপসের তুলনায় বাংলাতে এ বিষয়ক নির্মাণ খুব একটা বেশি নয়। তবুও কাজ হচ্ছে এটাই আশার কথা। ধারাবাহিকভাবে কোনো প্রকার ইন্টারনেট ব্যবহারের ঝামেলা ছাড়া শুধু একবার ডাউনলোড করে মোবাইলে ব্যবহার করা যায় প্রতিটি আ্যাপস। বাংলা ভাষায় নির্মিত হজ বিষয়ক ভালো কিছু আ্যাপসের পরিচিতি নিন্মে প্রদান করা হলো-

১. ধাপে ধাপে হজ : অ্যান্ড্রয়েড চালিত মোবাইল ফোনের জন্য আকর্ষণীয় একটি অ্যাপ। এতে হজের যাবতীয় কার্যাবলি ছবির সাহায্যে ধাপে ধাপে প্রাদন করা হয়েছে। অ্যাপটি তৈরি করেছে ইসলাম লাইট ফাউন্ডেশন। এই অ্যাপটির বিশেষ আকর্ষণ হলো- প্রতিটি বর্ণনার সাথে সাথে সৌদি ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রস্তুতকৃত বাংলা ভিডিও লেকচার যুক্ত রয়েছে। একজন বাংলা ভাষী হাজি হজের আমল-ইবাদত স¤পর্কিত প্রবন্ধগুলো পড়ার পাশাপাশি ভিডিওর মাধ্যেম বাস্তাবে আদায় করার গাইড পাবেন এখানে। গুগল প্লে থেকে আ্যাপটি এই লিঙ্ক https://play.google.com/store/apps/details?id=com.Nitaaj.HajjStepByStep.Bengali  থেকে ডাউনলোড করা যাবে।

২. হজ্জ ও মাসায়েল : এটি মূলত হজ বিষয়ক একটি বইয়ের আ্যাপ। হজ ও মাসায়েল বইটি হজ যাত্রীদের সফরের যাবতীয় মাসায়েল ও আবশ্যকীয় বিষয় এবং সহজ-সরল যাত্রার জন্য এক অনন্য কিতাব। এই বইয়ের মূল লেখক হলেন মাদ্রাসা-ই-মাযাহিরুল উলুম, সাহারানপুর, ভারতের মুফতি-ই-আযম মাওলানা আলহাজ সায়ীদ আহমদ। বইটি বাংলাতে অনুবাদক করেছেন মাওলানা আবুল কালাম মোঃ আব্দুল লতিফ চৌধুরী। আ্যাপটি ডাউনলোড করতে হবে এই লিঙ্ক থেকে https://play.google.com/store/apps/details?id=com.alhikmah.hajjomasayel

৩. হজ টিপস ইন বাংলা : হজ বিষয়ক বাংলাতে নির্মিত আরেকটি মোবাইল আ্যাপ হজ টিপস ইন বাংলা। যেখানে হজের বিভিন্ন আমল-আহকামগুলোকে সংক্ষিপ্তভাবে টিপস আকার উপস্থাপন করা হয়েছে। হজের নিয়ত থেকে শুরু করে সব আমলগুলোকে পয়েন্ট পয়েন্ট আকারে সাজানো আয়োজনটিই এই আ্যাপের বিশেষ দিক। গুগল প্লের https://play.google.com/store/apps/details?id=com.nahid.hajjtips এই লিঙ্ক থেকে আ্যাপটি ডাউনলোড করা যাবে।

৪. হজ গাইড : হজ বিষয়ক তথ্যসমৃদ্ধ একটি বাংলা আ্যাপ হজ গাইড। হজের ইতাহাস, বানী, প্রস্তুতি, হজের বিবরণ, মহিলাদের হজ, হজের ধাপসমূহ, তাওয়াফ, সায়ী, এহরামের বিধি-নিষেধ এমন সব শিরোনামে সাজানো হয়েছে এই আ্যাপটির বিষয়গুলোকে। এছাড়া এই আ্যাপটিতে সৌদি আরবে থাকাকালীন হাজীরা হারিয়ে গেলে কী করবেন এমন কিছু দিক-নির্দেশনাও সংযুক্ত করা হয়েছে। https://play.google.com/store/apps/details?id=app.hellotech.hajjguide গুগল প্লের এই লিঙ্ক থেকে আ্যাপটি ডাউনলোড করা যাবে।

একটি কথা মনে রাখা দরকার, পয়সার এপিট ওপিটের মতো প্রতিটি প্রযুক্তি পণ্য বা প্রযুক্তিগত উন্নয়নের এপিট ওপিট রয়েছে। দোষ কিন্তু জিনিসের বা প্রযুক্তির নয় মূল বিষয় হচ্ছে, প্রযুক্তিকে আমরা কোন কাজে ব্যবহার করছি। আমরা যদি প্রযুক্তিকে ইসলাম প্রচারের কাজে ব্যবহার করি তাহলে সব ধরনের প্রযুক্তিই কল্যাণের মাধ্যম হবে। সব নবী-রাসূলই তাদের জমানায় তৎকালীন প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়েছেন এবং নিজস্ব ধর্মের প্রচার-প্রসার করেছেন। তারা প্রযুক্তির সঠিক ব্যবহার করেছেন। আমরাও যদি প্রযুক্তিকে সঠিকভাবে ব্যবহার করি তাহলে তা হবে ইসলাম ও মুসলমানের জন্য কল্যাণকর।

 

Related posts

Top