কুরআন ও হাদীস পাঠ articles

দুআ-আযকার । রজব মাসের বিশেষ দুআ

দুআ-আযকার । রজব মাসের বিশেষ দুআ

প্রশ্ন : রজব মাসে কি বিশেষ কোনো দুআ আছে? আলেমদের মুখে শুনেছিলাম যে, রজব মাসে কী যেনো  একটি দুআ পড়তে হয়। কিন্তু সেদিন একজন দ্বীনি ভাই বললেন, রজব মাসে বিশেষ কোনো আমল বা দুআ নেই। দয়া করে এ বিষয়ে সঠিক মাসআলা বলে কৃতজ্ঞ করবেন। উত্তর: রজব মাসে একটি বিশেষ দুআর কথা হাদীসে পাওয়া যায়।  দুআটি

সূরা ফাতিহা : ফজিলত ও ইমামের পিছনে পড়ার বিধান

হযরত আবু হুরাইরাহ (রা.) থেকে বর্ণিত। নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, যে ব্যক্তি এমন নামাজ পড়লো, যার মধ্যে উম্মুল কুরআন (সূরা ফাতিহা) পাঠ করে নি- তাঁর নামাজ অর্থ ও মূল্যহীন থাকে যাবে। (রাবী বলে) একথাটি তিনি তিনবার উল্লেখ করলেন। তাঁর নামাজ অসম্পূর্ণ থেকে যাবে। আবু হুরাইরাকে জিজ্ঞেস করা হলো, আমরা যখন ইমামের পিছনে

পবিত্র কুরআনের সর্বশ্রেষ্ঠ আয়াত- আয়াতুল কুরসী

হযরত নাওয়াশ ইবনে সাময়ান (রা.) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, আমি নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে বলতে শুনেছিঃ কিয়ামতের দিন কুরআন মাজীদ এবং তদানুযায়ী আমলকারী লোকদের উপস্থিত করা হবে। তাঁদের অগ্রভাগে সূরা বাকারা এবং সূরা আলে ইমরান থাকবে। এ দুইটি যেন মেঘমালা অথবা মেঘের ছায়া- যার মধ্যে থাকবে বিদ্যুতের মতো আলোক অথবা সেগুলো পালোকে বিছানো পাখির

পবিত্র কুরআন তিলাওয়াতের ফযিলত

আল্লাহ পাক ইরশাদ করেছেন, অবশ্যই তোমাদের নিকট আল্লাহর পক্ষ থেকে আলো ও সুস্পষ্ট গ্রন্থ এসেছে। এর মাধ্যমে আল্লাহ তাদেরকে শান্তির পথ দেখান, যারা তাঁর সন্তুষ্টির অনুসরণ করে এবং তাঁর অনুমতিতে তিনি তাদেরকে অন্ধকার থেকে আলোর দিকে বের করেন। আর তাদেরকে সরল পথের দিকে হিদায়াত দেন। (সূরা মায়িদাহ-১৫, ১৬) এই কুরআন শিক্ষা থেকে  দিন দিন আমরা

দুআ ও যিকর । ফরয নামাযের পর আয়াতুল কুরসী পাঠ করার ফযিলত

প্রশ্ন : জুমআর বয়ানে একজন আলেম বললেন, প্রত্যেক ফরয নামাযের পর আয়াতুল কুরসী পাঠ করার অভ্যাস করা চাই। কেননা, যে ব্যক্তি প্রত্যেক ফরয নামাযের পর আয়াতুল কুরসী পাঠ করবে সে মৃত্যুর সাথে সাথে জান্নাতে প্রবেশ করবে। আমার জানার বিষয় হলো, এ সংক্রান্ত কোনো হাদীস আছে কিনা? যদি হাদীস থাকে তাহলে যে ব্যক্তি সব ধরনের খারাপ

Top