সমকালীন/তথ্য বিচিত্রা articles

মজুদদারি সম্পর্কে ইসলামের বিধান

মজুদদারি সম্পর্কে ইসলামের বিধান

খাদ্যদ্রব্য মজুদ করা অথবা তা বাজার থেকে তুলে নিয়ে যে কৃত্তিম সংকট সৃষ্টি করা হয় তাই মজুদদারী। মূলত একদল মধ্যস্বত্তভোগী অবৈধভাবে মুনাফা অর্জনের আশায় এ কাজ করে থাকে। দাম বাড়ানো এবং অধিক মুনাফার প্রত্যাশা করাকে ইসলাম অবৈধ করেছে। হানাফি মাজহাব মতে তা মাকরূহে তাহরিমি (হারাম সমতুল্য) হলেও অন্যান্য মাজহাব মতে এটি হারাম। এর ফলে সাধারণ

মতভিন্নতার মাঝেও সহাবস্থানে আমাদের করণীয়

কুরআনুল কারীম ও হাদিস শরিফে উম্মাহর পারস্পরিক ঐক্য ধরে রাখার জন্য জোর তাগিদ দেয়া হয়েছে। ইরশাদ হয়েছে : وَاعْتَصِمُواْ بِحَبْلِ اللّهِ جَمِيعًا وَلاَ تَفَرَّقُواْ ‘তোমরা আল্লাহর রজ্জুকে দৃঢ়ভাবে ধারণ কর এবং পরস্পর বিচ্ছিন্ন হয়ো না।’ (সূরা আলে ইমরান : ১০৩)। রাসূলে কারিম (সা.) ইরশাদ করেন, المسلمون كرجل واحد، إن اشتكى عينه اشتكى كله، وإن اشتكى

মুসলিম উম্মাহর প্রধান ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর

মুসলিম উম্মাহর সর্বজনীন আনন্দ-উৎসব ঈদুল ফিতর। রোজাদার যে আত্মশুদ্ধি, সংযম, ত্যাগ-তিতিক্ষা, উদারতা, বদান্যতা, মহানুভবতা ও মানবতার গুণাবলি দ্বারা উদ্ভাসিত হন, এর গতিধারার প্রবাহ অক্ষুন্ন রাখার শপথ গ্রহণের দিন হিসেবে ঈদুল ফিতরের আগমন হয়। এদিন যে আনন্দধারা প্রবাহিত হয়, তা অফুরন্ত পুণ্য দ্বারা পরিপূর্ণ। সারা বছর জুড়ে ব্যক্তিগত, পারিবারিক ও সামাজিক সকল ভেদাভেদ ও দ্বন্দ কলহ

সারাবিশ্বে একদিনে রোযা ও ঈদ

বর্তমান সময়ে সারাবিশ্বে অন্যতম একটি আলোচিত বিষয় হলো, সমগ্র বিশ্বে একই দিনে রোযা ও ঈদ। বিষয়টি যেমনই জটিল তেমনই স্পর্শকাতর। এ নিয়ে পক্ষে বিপক্ষে অনেক আলোচনা-পর্যালোচনা হয়েছে। কেউ শুধু ধর্মীয় দিকটি প্রাধান্য দিয়েছেন আর কেউ শুধু বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির দিকটি প্রাধান্য দিয়েছেন। অথচ বর্তমানের আধুনিক বিজ্ঞানমনস্ক মানুষকে যেমন শুধু ধর্মের বাণীতে সন্তুষ্ট করা যায় না,

ইসলামে নারীর সম্মান, মর্যাদা, অধিকার ও সামাজিক দায়িত্ব

মানুষ সামাজিক জীব, অন্যদিকে প্রকৃতির অংশ। তাই মানুষকে জীবন ধারণ, বেঁচে থাকা ও অস্তিত্ব রক্ষার জন্য প্রাকৃতিক ও সামাজিক উভয় বিধানই মেনে চলতে হবে। প্রাকৃতিক বিধান লঙ্ঘন করলে ধ্বংস অনিবার্য। আর সামাজিক বিধান ভঙ্গ করলে নেমে আসে বিপর্যয়। সামাজিক নিয়মগুলো প্রকৃতি থেকে মানুষের লব্ধ জ্ঞান ও অভিজ্ঞতার আলোকে গড়ে ওঠে।

Top