সাম্প্রতিক পোস্ট articles

মাজলুমের বদদোয়াই জালিমের ধ্বংসের জন্য যথেষ্ট

মাজলুমের বদদোয়াই জালিমের ধ্বংসের জন্য যথেষ্ট

জুলুম শব্দটি একটি আরবি শব্দ। এর আভিধানিক অর্থ অত্যাচার করা, অবিচার করা, কাউকে তার অধিকার থেকে বঞ্চিত করা বা অন্যায়ভাবে কাউকে শারীরিক-মানসিক-আর্থিক কষ্ট দেয়া। জুলুম একটি নিকৃষ্টতম অপরাধ। এ ব্যাপারে কারো সন্দেহ বা দ্বিমত নেই। ইসলাম সহ সকল ধর্মেই জুলুম মারাত্মক অপরাধ হিসেবে বিবেচিত। কুরআন-সুন্নাহ জুলুম এবং জালিমের শাস্তির ব্যাপারে কঠোর হুসিয়ারী উচ্চারণ করেছে। কঠোর

আত্মহত্যা সম্পর্কে ইসলামের বক্তব্য

প্রতিদিন খবরের কাগজে এবং ইলেক্ট্রনিক্স মিডিয়ায় প্রচারিত হচ্ছে আত্মহত্যার কোনো না কোনো নিউজ। হতাশার যায়গা থেকে যারা আত্মহত্যার পথ বেছে নিচ্ছে, তা মূলত কোন সমাধান নয় বরং সমস্যা সৃষ্টি করে। এটি মনে রাখা জরুরি যে, একটি আত্মহত্যা শুধু একটি জীবনকে শেষ করে দেয় না বরং একটি পরিবার, সমাজ, রাষ্ট্র এমনকি গোটা মানবজাতিকে হুমকির মধ্যে ফেলে

মাদকের ভয়াবহতা ও ইসলামের দৃষ্টিভঙ্গি

নেশা ও মাদক মানবজীবনকে ধ্বংস করে দেয়। ইহা মানব-সভ্যতার চরম শত্রু। এটা জীবন ও সম্ভাবনাকে নষ্ট করে, শান্তির পরিবারে অশান্তির আগুন প্রজ্জ্বলিত করে এবং সমাজে অনাচার ও অস্থিরতা সৃষ্টি করে। তাই শান্তি ও কল্যাণের ধর্ম ইসলামে নেশা ও মাদক সম্পূর্ণ হারাম। কুরআন মাজীদে ইরশাদ হয়েছে- يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آَمَنُوا إِنَّمَا الْخَمْرُ وَالْمَيْسِرُ وَالْأَنْصَابُ وَالْأَزْلَامُ رِجْسٌ

মজুদদারি সম্পর্কে ইসলামের বিধান

খাদ্যদ্রব্য মজুদ করা অথবা তা বাজার থেকে তুলে নিয়ে যে কৃত্তিম সংকট সৃষ্টি করা হয় তাই মজুদদারী। মূলত একদল মধ্যস্বত্তভোগী অবৈধভাবে মুনাফা অর্জনের আশায় এ কাজ করে থাকে। দাম বাড়ানো এবং অধিক মুনাফার প্রত্যাশা করাকে ইসলাম অবৈধ করেছে। হানাফি মাজহাব মতে তা মাকরূহে তাহরিমি (হারাম সমতুল্য) হলেও অন্যান্য মাজহাব মতে এটি হারাম। এর ফলে সাধারণ

সুদের সামাজিক কুপ্রভাব; ইসলামের বিধান

কুরআন মাজীদে সুদের প্রতিশব্দ হিসেবে ‘রিবা’ শব্দটি ব্যবহার করা হয়েছে। এর মূলে রয়েছে আরবী ভাষায় ر ب و তিনটি হরফ। এর অর্থের মধ্যে বেশী, বৃদ্ধি, বিকাশ, চড়া প্রভৃতি ভাব নিহিত। যেমন, ربا (রাবা)অর্থ বৃদ্ধি পাওয়া ও বেশী হওয়া। ইসলামী শরীয়ায় লেনদেনের ক্ষেত্রে চুক্তির শর্তানুযায়ী শরীয়াহ সম্মত কোনরুপ বিনিময় ব্যতীত মূলধনের উপর অতিরিক্ত যা কিছু গ্রহণ

Top